বীর্য খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা । ২০২৩

বীর্য খাওয়ার উপকারিতা

Last Updated on 15th October 2023 by Mijanur Rahman

ছোট বাচ্চারা দেখবেন একটার পর একটা প্রশ্ন করতে থাকে, আমার যখনই সুযোগ হয় ছোটদের সাথে কথা বলার আমি ওদের একটার পর একটা কৌতহুলি প্রশ্নের উত্তর দেই, আসলে ভালোই লাগে ওদের অগোছালো প্রশ্ন।

শুধু শিশুরাই নয়, মানুষ বলতেই কৌতহুলি, এবং নতুন নতুন জিনিষ সম্পর্কে জানতে ভালোবাসে, আর এই কৌতহুলই আজকের মানুষকে জঙ্গল থেকে এই আধুনিক সমাজে নিয়ে এসেছে, যাকগে, সে অন্য আলাপ, তবে আজকের এই লেখাটা আমি সেসব কৌতহুলি মানুষদের জন্যেই লেখতেছি যারা বীর্য খাওয়ার উপকারিতা নিয়ে জানতে আগ্রহী।

এই লেখাতে আমরা দেখবো বীর্য কি, এবং বীর্য খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত।

তাহলে দেরী না করে চলুন জেনে নেই পুরুষের বীর্য খাওয়ার উপকারিতা বা স্ত্রীর বীর্য খাওয়ার উপকারিতা নিয়ে আজকের লেখাটি।

বীর্য 

বীর্য কে আমরা অনেকেই Sperm হিসাবে চিনি, অনেকে আবার Semen হিসাবে চিনি, আর আমাদের দেশে একেক জায়গায় একেক নামে এটি পরিচিত। নাম যাইহোক না কেনো, বীর্য হলো নারী পুরুষের প্রজনন কালে নির্গত সাদা, ধূসর কখনো হালকা হলদেটে তরল যা মানব সন্তান জন্ম দিতে সক্ষম।

আরো সহজ করে বললে বীর্য হলো শুক্রাণু, যার মাধ্যমে বাচ্চার জন্ম হয়। পুরুষের এবং স্ত্রীর বীর্যের রঙ ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে।

এই বীর্য সাধারণত সহবাসের সময় পুরুষ নারীর যোনির ভিতরে ফেলে থাকে, যার ফলে একটা মানব সন্তানের জন্ম হয়।ত

বীর্যের স্বাদ কেমন?

বীর্যের স্বাদ কারো কাছে নোনতা, কারো কাছে মিষ্টি, কারো কাছে টক, কারো কাছে মিশ্র স্বাদের হয়ে থাকে।

উপাদান

কোন কিছু খাওয়ার আগে জানা উচিত এতে কি কি উপকারি উপাদান থাকে। তাহলে চলুন দেখে নেই বীর্যে আসলে কি কি থাকে। নিচের উপাদানগুলি দিয়ে মূলত বীর্য গঠিতঃ

  • চিনি, গ্লোকোজ
  • জিংক
  • সোডিয়াম
  • পটাসিয়াম
  • ল্যাকটিক অ্যাসিড
  • সাইট্রেট অ্যাসিড
  • ম্যাগনেসিয়াম
  • ক্যালসিয়াম
  • ক্লোরাইড
  • ইউরিয়া

বীর্য খাওয়ার উপকারিতা

বীর্য খাওয়ার যে উপকারিতাগুলি বিশেষ করে প্রচার করা হয় তার কিছু সত্য আবার কিছু মিথ্যে, তবে চলুন এই লেখাতে আমরা জেনে নেই আসলে পুরুষের বীর্য খাওয়ার উপকারিতা কি কি।

বীর্য নিয়ে সবচেয়ে বড় ভূল তথ্য প্রচার করা হয় এতে  প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন থাকে, তাই বীর্য খাওয়ার ফলে রাতারাতি নানান স্বাস্থ্য উপকারিতা পাওয়া যায়। মুলত বীর্যের ২০ ভাগের ১ ভাগ প্রোটিন থাকে, যার ফলে প্রোটিনের ঘাটতি পূরণে নিয়মিত গ্লাস গ্লাস বীর্য খেতে হতে হবে।

আরো সহজ করে বললে, গবেষণায় দেখা গেছে, ১০০ গ্রাম বীর্যে মাত্র ৫ গ্রাম প্রোটিন থাকে, তার অর্থ হলো, আপনি যদি ১০০ গ্রাম কোকাকোলা কিংবা ফান্টারর বোতল সমান বীর্য খান, সেখান থেকে ১টা ডিমের থেকে কম প্রোটিন পাবেন। ১টা ডিমের মধ্যে ৬ গ্রাম প্রোটিন থাকে, যেখানে আপনি ১০০ গ্রাম বীর্যে পাচ্ছেন মাত্র ৫ গ্রাম প্রোটিন।

গবেষণায় আরো দেখা গেছে, ১ পিস চুইংগামে যতটুকু ক্যালোরি থাকে ১ চামুচ বীর্যে ততুটুকু ক্যালোরি থাকে।

তার অর্থ হলো বীর্যে এতো বেশি ক্যালোরি বা প্রোটিন নাই যার জন্যে আগ্রহ নিয়ে বীর্য খেতে হবে। তবে প্রোটিন কিংবা ক্যালোরি ছাড়াও কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে সেগুলি হলোঃ

উপরের উপকারিতাগুলি পেতে হলে অবশ্যই আপনার অনেক বীর্যের প্রযোজন পড়বে, যদি এক টেবিল চামুচ বীর্য ব্যবহার করে রাতারাতি ফল আশা করে থাকেন তাহলে আপনি মোটামুটি আশাহত হবেন, যেহেতু বীর্যের মধ্যে পানি ছাড়া কোন উপকারি উপাদান ই বেশি পরিমানে নেই, সেহেতু এটি দীর্ঘ সময় ব্যবহারের ফলে ধীরে ধীরে উপকারিতাগুলি পেতে পারেন।

রিলেটেডঃ যোনিতে চুলকানি দূর করার উপায়, নিজে নিজে করুন সমাধান

বীর্য খাওয়ার অপকারিতা

এতোক্ষণ আমরা যে উপকারিতাগুলির বিষয়ে জানলাম এই উপকারিতাগুলি পাওয়ার আগে নিচের বীর্য খাওয়ার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্পর্কে জানা উচিত।

প্রথমত আপনি যদি মুসলিম হোন তাহলে বীর্য খাওয়া কিংবা সহবাসের সময় স্বামী স্ত্রীর লজ্জাস্থান চোষা নিয়ে সঠিক জ্ঞান রাখতে হবে, এগুলো ইসলামের দৃষ্টিতে হারাম ও গর্হিত কাজ। এছাড়াও বীর্য খাওয়ার যেসব অপকারিতা রয়েছে সেগুলো হলোঃ

রিলেটেডঃ মেয়েদের উত্তেজিত করার সহজ উপায় । ২০২৩

বীর্যের সুবাস কেমন?

এটি ব্যাক্তিবেধে ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে, কারো কাছে ব্লিচ পাউডারের মতো ত কারো কাছে বাড়িঘর পরিষ্কার করার ক্লিনারের মতো। এটা নির্ভর করে ব্যক্তির উপর।

বীর্য হজম হয়?

হ্যা বীর্য পেটে অন্যান্য খাবারের মতই হজম হয়ে থাকে, এবং মুখ দিয়ে বীর্য খেলে এতে গর্ভবতী হওয়ার কোন ধরণের সম্ভাবনা থাকে না।

নারী ও পুরুষের বীর্যে কি একই উপাদান থাকে?

খুব কম নারীর বীর্যপাত হয় , যখন কোন প্রাপ্তবয়ষ্ক নারীর অর্গজম বা চরমসুখ হয় তখই ই একমাত্র বীর্য আসে, আর এই বীর্যে প্রচুর পরিমাণে পানি ও ইলেক্ট্রোলাইট থাকে, এছাড়াও পরুষের বীর্যে যেসব উপাদান থাকে তার অধিকাংশই নারীর বীর্যে থাকে। তাই স্ত্রীর বীর্য খাওয়ার উপকারিতা ও পুরুষের বীর্য খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা মোটামুটি একই।

পরিশেষে

তো বন্ধুরা এই ছিলো আজকে আমাদের লেখা পুরুষের বীর্য খাওয়ার উপকারিতা বা স্ত্রীর বীর্য খাওয়ার উপকারিতা নিয়ে বিস্তারিত আয়োজন। যদি লেখাটি নিয়ে কোন ধরনের প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

আজকের মতো এখানেই বিদায়, দেখা হবে আগামী লেখাতে।

Author

Scroll to Top