অন্ডকোষ ব্যাথার কারন কি

অন্ডকোষ ব্যাথার কারন কি? অন্ডকোষ ব্যাথায় করণীয়

আমাদের মধ্যে অনেক যুবক কিংবা পুরুষ আছেন যাদের অন্ডকোষে হঠাত ব্যথা দেখা দেয়। এই ব্যথা যেকোন বয়সের যুবক কিংবা পুরুষের হতে পারে, একটি অন্ডকোষে কিংবা উভয় অন্ডকোষে এই ব্যাথা দেখা দেয়, অন্ডকোষ অত্যাধিক স্পর্শকাতর হওয়ায় মেডিকেলের বাসায় বলে ইমার্জেন্সি কন্ডিশন। এই ব্যাথা সাধারণত কম বয়সী যুবকদের ক্ষেত্রে বেশি দেখা দিয়ে থাকে। আজকের আর্টিকেলে আমরা জানবো অন্ডকোষ ব্যাথার কারন কি, কেন হঠাত আমরা অন্ডকোষ ব্যাথার সম্মুখীন হয়, আর এই ব্যথায় আক্রান্ত হলে আমাদের করণীয় কি এসব। তাহলে চলুন দেখে নেই অন্ডকোষ ব্যাথার কারন।

অন্ডকোষ ব্যাথা

অন্ডকোষ ব্যাথা সাধারণত কুঁচকিতে আঘাত (Groin), অন্ডকোষে ঘর্ষণ, ছত্রাক বা ব্যাক্টেরিয়া জনিত আক্রমনের ফলে হয়ে থাকে। এই ব্যাথা যেকোন সময়ে খুব তীব্রভাবে আক্রমণ করতে পারে। আবার খুব অল্প অল্প করে এই ব্যাথা দীর্ঘায়িত হতে পারে। যদি আপনি খুব তীব্রভাবে ব্যাথা অনুভব করেন তাহলে দেরী না করে যত তারাতারি সম্ভব বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

অন্ডকোষ ব্যাথার কারন কি

অন্ডকোষ ব্যাথার কারণ অনেক ধরনের হতে পারে। যদি এই ব্যথার ফলে আপনি চিন্তা করেন আপনার অন্ডকোষে কোন মারাত্মক রোগ বাসা বেধেছে তাহলে ভুল করবেন। কারণ কিডনিতে পাথর হলেও অন্ডকোষে ব্যাথা হতে পারে, বা আরো নানান কারণে এই ব্যাথা দেখা দিতে পারে। চলুন দেখে নেই কি কি কারণে অন্ডকোষে সাধারণত ব্যাথা হয়।

  • যাদের ডায়াবেটিসের সমস্যা আছে তাদের এই ব্যাথা দেখা দিতে পারে। ডায়াবেটিসের কারণে শরীরের অনেক নার্ভ বিকল হয়ে যায়, যার ফলে অন্ডকোষে ব্যাথা দেখা দেয়।
  • অণ্ডকোষের সেল খারাপ বা বিকল হওয়ার ফলে এই ব্যাথা হয়ে থাকে।
  • কোন কিছুর আঘাত অন্ডকোষ ব্যাথার কারন হতে পারে। অন্ডকোষ খুব নরম হওয়ার ফলে হালকা কোন আঘাতে তীব্র ব্যাথা হয়ে থাকে।
  • অন্ডকোষে তরল (fluid buildup) জমা হওয়ার ফলে অনেক সময় অন্ডকোষ ফুলে যায়, যার কারণে ব্যাথা হয়।
  • কিডনিতে পাথর হওয়ার কারণে
  • মুত্রনালীর সংক্রমণের ফলে। (রিলেটেডঃ প্রসাবে জ্বালাপোড়া ঘরোয়া চিকিৎসা, কারণ ও লক্ষণ)
  • অন্ডকোষের রক্ত সরবরাহের শিরাতে সমস্যা হলে অনেক সময় রক্ত চলাচল বন্ধ হয়ে যায়, যার ফলে তীব্র ব্যাথা হতে পারে। এমন হলে দ্রুত ডাক্তারের কাছে যাওয়া উচিত।
  • অন্ডকোষে ক্যান্সারের ফলে এই ব্যাথা হতে পারে। ১৫-৩৫ বছরের যুবক কিংবা পুরুষের ক্ষেত্রে এই ক্যান্সার খুব স্বাভাবিক বিষয়। তাই যত দ্রুত সম্ভব বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দিয়ে মেডিকেল টেস্ট করানো উচিত।
অন্ডকোষ ব্যাথার কারন কি
এথলেটিক underwear

অন্ডকোষ ব্যাথায় করণীয়

অন্ডকোষ ব্যাথা হলে সবার আগে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত। ব্যথা অল্প হলে বা তাৎক্ষণিক ডাক্তারের কাছে যেতে না পারলে যেসব ঘরোয়া চিকিৎসার সাহায্য নিবেন তা হলঃ

  • বেশি হাটা চলা না করা, বিশ্রাম নেওয়া।
  • দুই হালকা গরম পানি দিয়ে গোসল করা কিংবা যেখানে ব্যাথা সেখানে গরম কিছু দিয়ে তাপ দেওয়া।
  • যদি অন্ডকোষ ফুলে থাকে তাহলে বরফ দিয়ে হালকা ঘষা দিতে পারেন। বরফ অন্ডকোষে কোন ধরনের তরল বা লিকুইড জমা হলে সেটা থেকে সাময়িক মুক্তি দিতে পারে।
  • ব্যাথার সময় ভারি কিছু বহন না করা।
  • টাইট underwear পড়তে পারেন, যদি এই ব্যাথা অন্ডকোষে বেশি নাড়াছাড়া খাওয়ার ফলে আসে তাহলে এথলেটিক underwear সাহায্য করতে পারে।


আগ্রহীরা এই ভিডিও দেখতে পারেন “অন্ডকোষের রোগ ও চিকিৎসা | সুস্থ থাকুন প্রতিদিন”

এই ছিলো অন্ডকোষ ব্যাথার কারন ও করণীয় হেলথ টিপস, অন্ডকোষ পুরুষের শরীরের সবচেয়ে স্পর্শকাতর জায়গা। তাই এখানে কোন ধরণের সমস্যা দ্রুত ডাক্তারের যাওয়া উচিত।

তথ্যসুত্রঃ

https://www.healthline.com/health/testicle-pain

https://www.verywellhealth.com/what-to-do-when-testicle-pain-wont-go-away-4117418

https://www.mayoclinic.org/symptoms/testicle-pain/basics/causes/sym-20050942

বিঃদ্রঃ  এই ব্লগের প্রত্যেকটা ব্লগ পোস্ট Sylhetism ব্লগের নিজস্ব ডিজিটাল সম্পদ। কেউ ব্লগের কোন পোস্ট কিংবা আংশিক অংশ ব্লগের কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কপি পেস্ট করে অন্য কোথাও প্রকাশ করলে ব্লগ কর্তৃপক্ষ ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনে মামলা করার অধিকার রাখে। এবং অবশ্যই কপিরাইট ক্লাইম করে যে মাধ্যমে এই ব্লগের পোস্ট প্রকাশ করা হবে সেখানেও কমপ্লেইন করা হবে।

এই ব্লগের কোন লেখায় তথ্যগত কোন ভুল থাকলে আমাদের Contact পেইজে সরাসরি যোগাযোগ করুন, আমরা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তথ্য যাচাই করে লেখা আপডেট করে দিবো।

এই ব্লগের কোন স্বাস্থ বিষয়ক পোস্টের পরামর্শ নিজের বাস্তব জীবনে প্রয়োগ করার আগে অবশ্যই বিশেষজ্ঞদের মতামত নিবেন, আমরা স্বাস্থ বিষয়ে কোন বিশেষজ্ঞ না, আমাদের উদ্দেশ্য ও লক্ষ হচ্ছে সঠিক তথ্য পরিবেশন করা। সুতারাং কোন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার দায়ভার অবশ্যই আমরা নিবো না।

ধন্যবাদ, ব্লগ কর্তৃপক্ষ।

You cannot copy content of this page