ভিপিএস হোস্টিং

ভিপিএস হোস্টিং কি? জেনে নিন সুবিধা ও অসুবিধা সমূহ । ২০২২

ভিপিএস কি?

ভিপিএস এর পুরো নাম হল ভার্চুয়াল প্রাইভেট সার্ভার। আশা করি এর অর্থ দেখেই বুঝতে পারছেন এটি একটি ওয়েব সার্ভার হিসেবে কাজ করে। এর ইউজাররা চাইলে এটি দিয়ে অনেক ধরনের অপারেটিং সিস্টেম ইন্সটল করতে পারে। প্রতিটি ভিপিএস এর নিজস্ব অপারেটিং সিস্টেম এবং অ্যাপ্লিকেশন থাকে। ভিপিএসকে প্রধানত ওয়েব হোস্টিং হিসেবে ব্যবহার করা হয়। এর সুবিধা হচ্ছে আপনি যত খুশি এখানে হোস্ট করতে পারবেন। আমরা জানি যে শেয়ার হোস্টিং এ আরো অনেক ওয়েব সাইট হোস্ট করা হয়। অনেক মানুষ যদি একই হোস্টিং কোম্পানির হোস্টিং ব্যবহার করে থাকে তাহলে ওয়েব সাইট ডাউন হওয়ার সম্ভাবনা থাকে এবং একটু ভিসিটর বাড়লেও ওয়েবসাইট স্লো হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু ভিপিএস এ এই রকম হওয়ার সম্ভাবনা একবারেই নেই বললেই চলে।

প্রধানত দুই ধরনের ভিপিএস পাওয়া যায়।

  • আন ম্যানেজ ভিপিএস
  • ম্যানেজ ভিপিএস

আন ম্যানেজ ভিপিএস

আন ম্যানেজ ভিপিএসের মাধ্যমে আপনার ওয়েব হোস্টিং অপারেটিং সিস্টেম ইনস্টল করতে পারবেন এবং সাইটের মালিক হিসেবে আপনি সার্ভারের বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দিতে পারবেন। নিম্নে এটির এর উপকার সম্পর্কএ আরো বিস্তারিত আলোচনা করা হলঃ 

  • সফ্টওয়্যার ইনস্টল করা, আপনার কন্ট্রোল প্যানেল এবং সফ্টওয়্যার আপডেট ইত্যাদি করতেন পারবেন।
  • সার্ভার এর নিরাপত্তা নজরদারি, বিভিন্ন নিরাপত্তামুলক সফ্টওয়্যার ইনস্টল এবং ত্রুটি  ঠিক করতে পারবেন।
  •  আপনার সার্ভার কনফিগার এবং রক্ষণাবেক্ষণ যে কোন সফ্টওয়্যার আপগ্রেড করতে পারবেন।
  • আপনি আপনার সাইট ব্যাকআপ সেট আপ করার দায়িত্ব নিতে পারবেন।

ম্যানেজ ভিপিএস

আমাদের মধ্যে যারা প্রযুক্তিগত দিন দিয়ে একটু কম দক্ষ বা তুলনামুলক ছোট হোস্টিং ওয়েব সাইট এর মালিকদের দ্বারা পরিচালিত এই সকল ওয়েব সাইটের জন্য এটি অনেক ভাল। এই হোস্টিংয়ের সাথে আইটি পেশাদাররা আপনার সার্ভারটি সঠিকভাবে চালিয়ে এবং আপনার ভার্চুয়াল সার্ভারের যত্ন নেওয়ার মাধ্যমে আপনার ঝামেলা অনেকাংশেই  কম করে দিতে পারে। নিম্নে এর উপকার সম্পর্কে আরো বিস্তারিত আলোচনা করা হলঃ 

প্রাথমিক সার্ভার সেটআপ

যখন আপনি একটি ভিপিএস দিয়ে আপনার সাইট চালু করেন তখন আপনার কন্ট্রোল প্যানেল, সার্ভার সফটওয়্যার, অ্যাপ্লিকেশন এবং আপনার অপারেটিং সিস্টেম ইনস্টল করা সহ সার্ভার সেট আপ ইত্যাদি খুব সহজে করতে পারবেন।

আপডেট

একইভাবে, সমস্ত অ্যাপ্লিকেশন এবং ও-এস আপডেট, এবং সার্ভারের চলমান সূক্ষ্ম টিউনিং আপনার জন্য পরিচালিত করতে পারবেন।

নিরাপত্তা

আপনার ও-এস এবং কোর সার্ভার সফটওয়্যারের জন্য নিরাপত্তা আপনার পক্ষ থেকে ইনস্টল এবং আপডেট করতে পারবেন।

পর্যবেক্ষণ

এই হোস্টিং এর মাধ্যমে আপনার যদি কোন কারনে আপনার  কম্পিউটার হার্ডওয়্যার এ সমস্যা হয় বা হ্যাকারদের দ্বারা আক্রমণ এর শিকার যাতে না হয় এই হোস্টিং সেই ব্যাপারে সব সময় পর্যবেক্ষন করে।

স্বয়ংক্রিয় ব্যাকআপ

যদি আপনার সাইটে কিছু ভুল হয়ে যায়, তাহলে আপনি এটিকে আগের সংস্করণে ফিরিয়ে আনতে পারেবেন। আপনার ভিপিএস হোস্টিং প্রদানকারীর সাথে যোগাযোগ করে দেখুন তারা কোন স্তরের ব্যবস্থাপনা অফার  করছে। এই দুটি ছাড়াও আরো কয়েকটি ভিপিএস হতে পারে। কোন কোন এই হোস্টিং প্রদানকারীর কোম্পানি আরো অনেক ধরনের এই হোস্টিং প্রদান করে থাকে। যেমনঃ সেল্ফ মেনেজড এবং ফুল্লি মেনেজড ভিপিএস।আপনি যদি আন মেনেজড ভিপিএস ব্যবহার করার চিন্তা করে থাকেন তাহলে মেনেজড ভিপিএস থেকে এর খরচ কিছুটা কম পড়বে। আপনার সার্ভারটি কীভাবে চালাতে হবে সে সম্পর্কে আপনার প্রযুক্তিগত জ্ঞান থাকতে হবে, অথবা এটিকে সহজেই এবং সম্ভাব্য আক্রমণ থেকে নিরাপদ রাখার জন্য কাউকে নিয়োগ দিতে হবে।

ভিপিএস হোস্টিং কি?

ভিপিএস হোস্টিং হোস্টিং হল অন্যতম জনপ্রিয় হোস্টিং সেবা যা আপনি আপনার ওয়েবসাইটের জন্য বেছে নিতে পারেন। এটি আপনাকে একটি সার্ভারে ব্যক্তিগত ভাবে চালানোর ক্ষমতা  প্রদানের জন্য ভার্চুয়ালাইজেশন প্রযুক্তি ব্যবহার করে। এটি শেয়ার করা হোস্টিংয়ের চেয়ে অনেক বেশি নিরাপদ এবং স্থিতিশীল। ভিপিএস হোস্টিং ক্রমেই ব্যাবহারকারীর কাছে জনপ্রিয় হচ্ছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না, Statista এক বাজার গবেষণায় দেখা গেছে ভিপিএস হোস্টিং এর বাজার দিন দিন অনেক বড় হচ্ছে, নিচের চিত্রে তা দেখা যাচ্ছে।

Size of the dedicated hosting market worldwide from 2010 to 2020
Size of the dedicated hosting market worldwide from 2010 to 2020

ভিপিএস হোস্টিং কাদের জন্য?

এই  হোস্টিং সাধারণত ওয়েবসাইট মালিকদের দ্বারা বেছে নেওয়া হয় যাদের মাঝারি স্তরের ট্রাফিক রয়েছে কিন্তু আপনি এখনও শেয়ার করা হোস্টিং ব্যবহার করেন তাহলে আপনার জন্য এই হোস্টিং ব্যবহার করা উত্তম। সব মিলিয়ে, এই হোস্টিং আপনাকে আপনার নিজস্ব সার্ভার সহ একটি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণের অ্যাক্সেস দেয়। আগেও বলেছি এটি মাঝারি থেকে উচ্চ ট্রাফিক,  এবং ইকমার্স ওয়েবসাইটগুলির জন্য একটি চমৎকার সমাধান। যারা ওয়েব সাইট দিয়ে ব্যবসায় দ্রুত বৃদ্ধি করতে চান তারাও উপকৃত হতে পারেন এই হোস্টিং এর মাধ্যমে। আপনি যদি  একটি নির্ভরযোগ্য, ব্যবসায়িক স্কেল হোস্টিং পরিবেশ চান, তাহলে আপনার ওয়েবসাইটের জন্য এই হোস্টিং বিবেচনা করা অবশ্যই ভাল।

ভিপিএস কিভাবে কাজ করে?

সার্ভার হচ্ছে এমন একটি জায়গা যেখানে আপনার ওয়েব হোস্ট করার জন্য আপনার ওয়েবসাইটের জন্য প্রয়োজনীয় ফাইল এবং ডাটাবেস সংরক্ষণ করে। যখনই একজন অনলাইন ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে চায়, তাদের ব্রাউজার আপনার সার্ভারে একটি অনুরোধ পাঠায় এবং এটি ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ফাইল স্থানান্তর করে। এই হোস্টিং আপনাকে একটি ভার্চুয়াল সার্ভার প্রদান করে যা একটি ফিজিক্যাল সার্ভারকে সিমুলেট করে।

ভার্চুয়ালাইজেশন প্রযুক্তি ব্যবহার করে, আপনার হোস্টিং প্রদানকারী সার্ভারের অপারেটিং সিস্টেম (ও-এস) এর উপরে একটি ভার্চুয়াল স্তর ইনস্টল করে। এই স্তরটি সার্ভারকে পার্টিশনে বিভক্ত করে এবং প্রতিটি ব্যবহারকারীকে তাদের নিজস্ব (ও-এস) এবং সফটওয়্যার ইনস্টল করার অনুমতি দেয়। ভার্চুয়ালাইজেশন সফটওয়্যারের মাধ্যমে একাধিক ভাগে ভাগ করে স্লাইড বা নোড তৈরী করা হয়। এই নোড এর মাধ্যমেই সার্ভার সম্পুর্ণ স্বাধীন ভাবে কাজ করে। ঠিক তখনই এটি ভার্চুয়াল প্রাইভেট সার্ভার হিসেবে কাজ করে যাকে আমরা সহজ কথায় ভিপিএস বলি। এটি ডেডিকেটেড সার্ভার এর মতই কাজ করে এবং  ডেডিকেটেড সার্ভার এর মাধ্যমেই ইউজার কন্ট্রোল করে। ব্যবহারকারীকে নিজের স্বাধীন মত ব্যবহার করার যোগ্যতা প্রদান করে।

একটি ভিপিএস  আপনাকে নিশ্চিত ওয়েবসাইটের সাথে একটি নিরাপদ সেটআপ করতে দেয় (মেমরি, ডিস্ক স্পেস, সিপিইউ কোর, ইত্যাদি) যা আপনাকে অন্য ব্যবহারকারীদের সাথে শেয়ার করতে হবে না। এই হোস্টিংয়ের সাথে, আপনার একই রুট-লেভেল অ্যাক্সেস আছে যেমন আপনার একটি ডেডিকেটেড সার্ভার আছে, কিন্তু অনেক কম খরচে।

ভিপিএস হোস্টিং এর সুবিধা

এই হোস্টিং নিঃসন্দেহে ব্যবহারকারীদের জন্য একটি ভাল পছন্দ। যারা এখন আর শেয়ার্ড সার্ভার ব্যবহার করতে চান না। এই হোস্টিং ব্যবহারের সবচেয়ে বড় সুবিধাগুলি আলোচনা করা হলঃ 

  • এটি সাশ্রয়ী। এই হোস্টিংয়ের মাধ্যমে আপনি একটি ডেডিকেটেড সার্ভারে অ্যাক্সেস পাবেন, প্রকৃত ডেডিকেটেড সার্ভারের খরচ ছাড়াই।
  • বৃহত্তর সার্ভার কাস্টমাইজেশন। সাধারণত, আপনি যা চান তার জন্য আপনি অর্থ প্রদান করবেন বাড়তি  অর্থ দিতে হবে না এবং শুধু তাই নয় আপনার ওয়েবসাইট চালানোর জন্য আপনি আপনার প্রয়োজনীয় বৈশিষ্ট্য বা ফিচার যোগ করতে পারবেন।
  • এই হোস্টিংয়ের মাধ্যমে আপনি ধীরে ধীরে আপনার অ্যাক্সেস থাকা সার্ভার রিসোর্সের সংখ্যা বাড়িয়ে তুলতে পারেন, এবং আপনার প্রয়োজন নেই এমন সার্ভার রিসোর্সের জন্য আপনাকে অর্থ প্রদান করতে হবে না।
  • অনেক ভাল প্রযুক্তিগত সহায়তা পাবেন। এই হোস্টিংয়ের সাথে আপনি সাধারণত উন্নত প্রযুক্তিগত সহায়তা পাবেন।

ভিপিএস হোস্টিং এর অসুবিধা

 এই হোস্টিং প্রতিটি ওয়েবসাইটের মালিকের জন্য প্রথম দিক থেকে এই হোস্টিং ব্যবহার সহজ নাও হতে পারে। প্রকৃতপক্ষে, আপনি হয়ত শেয়ার করা হোস্টিং আর ব্যবহার করতে চান না, এখন আপনি ভিপিএস হোস্টিং ব্যবহার করতে চান। যখন আপনি শেয়ার করা হোস্টিংকে ভিপিএসে স্থানান্তরিত করবেন তখন আপনাকে আপনার সাইট পরিচালনার জন্য বেশ কিছু সমস্যায় পরতে পারেন। এই হোস্টিং এর বেশ কিছু অসুবিধা রয়েছে নিম্নে এই ব্যাপারে আলোচনা করা হলঃ 

  • এটি তুলনামূলকভাবে বেশি ব্যয়বহুল। আপনি যদি শেয়ার্ড হোস্টিং থেকে ভিপিএস এ আসতে চান, তাহলে জেনে রাখুন ভিপিএস শেয়ার্ড হোস্টিং এর চেয়ে বেশি ব্যয়বহুল হবে। 
  • যখন এই হোস্টিং  চালানো হয় তখন অন্য সাইট এর সার্ভার গুলি খুব বেশি পরিমাণে ব্যবহার করা হলে সাইটের কর্মক্ষমতা ধীর হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা  থাকে। যদিও এটি সাধারণত তখনই ঘটে যখন আপনি নিম্নমানের ভিপিএস হোস্ট ব্যবহার করছেন।
  • এটি ডেডিকেটেড সার্ভার এর মত সম্পুর্ণ তথ্য দিয়ে কাজ করে না। তাই আপনি এটির সম্পুর্ণ রিসোর্স ব্যবহার করতে পারবেন না।

আমার কখন ভিপিএস হোস্টিং ব্যবহার করা উচিত?

আপনার সাইট এর শেয়ার্ড হোস্টিং চালানোর পরিকল্পনা যখন শেষ হয়ে যাবে তখন আপনি এই হোস্টিং  ব্যবহার করতে পারেন। যারা একটি সম্পূর্ণ ডেডিকেটেড সার্ভার ব্যবহার করতে চান না আবার শেয়ার করা হোস্টিং থেকেও সরে আসতে চান তাদের জন্য এই হোস্টিং একটি চমৎকার উদাহরন।

ভিপিএস হোস্টিং এর বেশ কিছু উপকারী দিক।

আপনার গতি এবং কর্মক্ষমতা প্রয়োজন হয় এবং যদি আপনার সাইটটি আকারে বাড়ছে এবং আপনি বেশি পরিমাণে ট্র্যাফিকের সম্মুখীন হচ্ছেন, তাহলে আপনার এই হোস্টিং প্ল্যান প্রয়োজন হতে পারে। এই হোস্টিং স্কেলেবল এবং বড় এবং উচ্চ ট্রাফিকযুক্ত সাইটগুলিকে সমর্থন করতে পারে।

আপনি একটি কাস্টম সার্ভার সেটআপ এবং এটি ব্যবহার করতে পারবেন। এই সার্ভারের সাথে, আপনি আপনার সার্ভারের পরিবেশের উপর আরো নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। আপনি কেবল রুট সার্ভার অ্যাক্সেস পাবেন তা নয়, আপনার নিজের অপারেটিং সিস্টেম বেছে নেওয়ার এবং অন্যান্য কাস্টমাইজেশন করার ক্ষমতাও থাকবে।  এই হোস্টিংয়ের মাধ্যমে আপনি আপনার সাইটের বৃদ্ধির সাথে সাথে আপনার সার্ভারের রিসোর্সের চাহিদাগুলি আরও সহজেই বাড়িয়ে তুলতে পারেন। মূলত, এই হোস্টিং আপনাকে একই সুবিধা দেয় যা একটি ব্যক্তিগত সার্ভার আপনাকে দেবে।

ভিপিএস বনাম ভিপিএন

এদের নামের দিক থেকে মিল থাকলেও আসলে তাদের কাজের মধ্যে তেমন কোন মিল নেই। ভিপিএস হোস্টিং এমন একটি পরিষেবা যা আপনাকে ভার্চুয়াল সার্ভার পরিবেশ থেকে ওয়েবসাইট হোস্ট করতে দেয়। আর ভিপিএন একটি ব্যবহারকারী-ভিত্তিক সরঞ্জাম যা আপনাকে নিরাপদে ওয়েব ব্রাউজ করতে দেয়। ভিপিএন এর কাজই হচ্ছে আপনার ইন্টারনেটকে নিরাপদ রাখা। ভিপিএন এর মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েব ব্রাইজার এর আইপি পরিবর্তন করতে পারবেন। ফ্রি ভিপিএন থাকার পাশাপাশি আপনি অনেক ভাল মানের ভিপিএন ক্রয় করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ ভিপিএন কি? কিভাবে কাজ করে? বিস্তারিত ইতিহাস

ভিপিএস হোস্টিং এর দাম কত?

এটি এমন একটি প্রশ্ন যা একটি সাধারণ সংখ্যা দিয়ে উত্তর দেওয়া প্রায় অসম্ভব। কোন হোস্টিং পরিষেবা সার্ভারের ফিজিক্যাল কনফিগারেশন এর উপর ভিত্তি করে এই হোস্টিং দাম পরিবর্তিত হয়। প্রযুক্তির অগ্রগতির সাথে সাথে, নতুন এবং আরও শক্তিশালী হোস্টিং মুক্তি পাচ্ছে এবং সেই  অনুযায়ী এই হোস্টিং এর দাম উঠা নামা করে। তবে বর্তমানে ভার্চুয়াল প্রাইভেট সার্ভার এর দাম আগের দিনের তুলনায় অনেক কম খরচ হয়। এই অনুসারে, একটি ভার্চুয়াল প্রাইভেট সার্ভারের কনফিগারেশনের উপর নির্ভর করে এর খরচ বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে। নিচের চার্টে ক্যামি ক্লাউডের ভিপিএস হোস্টিং এর দাম দেখানো হল, এই দাম কোম্পানিভেদে ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে। নিচে আমি লিংক দিয়ে দিচ্ছি সেখান থেকে এই হোস্টিং চাইলেই আপনারা কিনতে পারবেন।

Cloud VPS Hosting Pricing
Cloud VPS Hosting Pricing

আপনি খুব সহজে অনলাইন থেকে এই হোস্টিং কিনতে পারবেন। আমি কয়েকটি সাইটের লিংক দিচ্ছি এইখান থেকে আপনি এই হোস্টিং কিনে নিতে পারবেন।

লিংকঃ 

পরিশেষেঃ  আমি আশা করি উপর এর তথ্যগুলো আপনাকে ভিপিএস কি এবং এর হোস্টিং এবং এটি কীভাবে কাজ করে তা বুঝতে সহায়তা করেছে। 

বিঃদ্রঃ এই ব্লগের প্রত্যেকটা ব্লগ পোস্ট Sylhetism ব্লগের নিজস্ব ডিজিটাল সম্পদ। কেউ ব্লগের কোন পোস্ট কিংবা আংশিক অংশ ব্লগের কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কপি পেস্ট করে অন্য কোথাও প্রকাশ করলে ব্লগ কর্তৃপক্ষ ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনে মামলা করার অধিকার রাখে। এবং অবশ্যই কপিরাইট ক্লাইম করে যে মাধ্যমে এই ব্লগের পোস্ট প্রকাশ করা হবে সেখানেও অভিযোগ সাবমিট করা হবে।

ধন্যবাদ, ব্লগ কর্তৃপক্ষ।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

You cannot copy content of this page